March 1, 2021, 9:53 pm
Headlines:
সকল দুর্যোগ ও সংগ্রাম মোকাবিলায় পুলিশের রয়েছে অসামান্য অবদান: বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন প্রচার না করার আহ্বান জানিয়েছে বিএসটিআই জাতীয় ভোটার দিবসে রাষ্ট্রপতির বাণী ৭ মার্চের ভাষণ ছিলো মুক্তিযুদ্ধের প্রেরণার উৎস: তথ্য প্রতিমন্ত্রী নিরপেক্ষ জাতীয় প্রেসক্লাবকে সংঘর্ষের ঢাল বানানো অপরাধের শামিল: তথ্যমন্ত্রী সকলের জন্য নিরাপদ ও স্বচ্ছন্দে হাঁটার পরিবেশ সৃষ্টির আহবান পবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সংঘর্ষ: বিএনপির ৪৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা রাজশাহীর সঙ্গে সারা দেশের বাস চলাচল বন্ধ শোক, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় দায়িত্বরত অবস্থায় জীবন উৎসর্গকারী পুলিশ সদস্যদের স্মরণ ওয়ারীর হাসান হত্যার মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার ডিএমপির ছাত্রদলের কর্মসূচির সময় পুলিশ ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দেশে বীমার সম্প্রসারণে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে ব্যাপক প্রচারণার ওপর গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ০৩টি কন্টিনজেন্টের ঢাকা ত্যাগ শিক্ষার্থীর শিক্ষাজীবন ব্যাহত না হয় তার নিশ্চয়তা দেবে বঙ্গবন্ধু শিক্ষা বীমা: প্রধানমন্ত্রী প্রকল্পের অর্থ দেশের উন্নয়নে ব্যয় করতে হবে: পরিবেশ ও বন মন্ত্রী OIC Assistant Secretary General for Political Affairs visits Rohingya Camps চট্টগ্রামে বিসিক শিল্প ও পণ্য মেলা চলছে মাদক মামলায় ইরফান সেলিমকে অব্যাহতি ১ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পাঁচটি ইলিশ অভয়াশ্রমে ইলিশসহ সকল প্রকার মাছ ধরা নিষিদ্ধ বিসিক ভবনে শুরু হয়েছে পাঁচ দিনব্যাপী হস্ত ও কুটির শিল্প মেলা

৮০ শতাংশ কিশোর-কিশোরী আয়রন সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করে: জরিপ

The Bangladesh Beyond
  • Published Time Thursday, February 11, 2021,

দেশের অধিকাংশ (৭৬৮৫ শতাংশ ) কিশোরকিশোরী খাদ্য তালিকার বিভিন্ন উপাদান সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করছেপ্রথম জাতীয় কিশোর-কিশোরী স্বাস্থ্য কল্যাণ জরিপ

ঢাকা, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১: 

বাংলাদেশে প্রতি পাঁচটি পরিবারের একটিতে কমপক্ষে একজন কিশোর/কিশোরী (১৫১৯ বছর বয়সী) আছে। কিশোরকিশোরীর মধ্যে ৯৭ শতাংশ  জীবনের কোন না কোন সময় প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় (স্কুল, কলেজ বা মাদ্রাসা) অংশগ্রহণ করেছে। দেশের ৯০ শতাংশ  কিশোরকিশোরী মোবাইল ফোন ব্যবহারের সুবিধাপ্রাপ্ত। বিবাহিত কিশোরীদের প্রায় অর্ধেক ও অবিবাহিত কিশোরীর প্রায় একচতুর্থাংশের নিজস্ব মোবাইল ফোন আছে। কিশোরদের ৫০ শতাংশ  এবং বিবাহিত এবং অবিবাহিত কিশোরীদের  ২০ শতাংশ  সপ্তাহে কমপক্ষে একবার ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকে।

বাংলাদেশ কিশোর-কিশোরী স্বাস্থ্য ও কল্যাণ জরিপ ২০১৯২০ বা বাংলাদেশ এডোলেসেন্ট হেলথ এন্ড ওয়েলবিইং সার্ভে ২০১৯২০ এরকম অসংখ্য তথ্য ও বিশ্লেষণ প্রথমবারের মতো তুলে ধরেছে। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে জরিপের ফলাফল আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব জাহিদ মালেক, এমপি।  

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের হেলথ সার্ভিসেস ডিভিশনের সচিব জনাব আব্দুল মান্নান; মেডিকেল এডুকেশন এন্ড ফ্যামিলি ওয়েলফেয়ার ডিভিশনের সচিব জনাব মোহাম্মাদ আলিনূর এবং মার্কিন দাতা সংস্থা ইউএসএআইডি-র পপুলেশন, হেলথ, নিউট্রিশন এন্ড এডুকেশন অফিসের পরিচালক জনাব জার্সেস সিধওয়া।

বাংলাদেশের কিশোরকিশোরীদের স্বাস্থ্য ও কল্যাণ পরিস্থিতি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে আনা ছিল এই জরিপের মূল উদ্দেশ্য। জরিপের মূল প্রতিবেদনে কিশোরকিশোরীর গণমাধ্যম ব্যবহার, বিয়ে, ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি, জেন্ডারসম্পর্কিত সামাজিক আচরণ, সহিংসতা, মানসিক স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও খাদ্যবৈচিত্র, এবংপরিবার ও বন্ধুদের সাথে সংযোগ বিষয়ক ১২টি অধ্যায়ে জরিপের ফলাফল তুলে ধরা হয়েছে।

জরিপে দেখা যায় যে, ৭৩ শতাংশ  অবিবাহিত কিশোরী এবং ৬৬ শতাংশ  অবিবাহিত কিশোর বয়ঃসন্ধি কালীন পরিবর্তন সম্পর্কে জানতে আগ্রহী। এই তথ্যের জন্য কিশোরীরা বইয়ের উপর নির্ভর করলে ও কিশোরদের তথ্যসংগ্রহের মূল মাধ্যম হলো ইন্টারনেট। কিশোরীদের অধিকাংশই ঋতুস্রাব শুরু হওয়ার আগে এই পরিবর্তন সম্পর্কে অবহিত ছিল না। বিবাহিত ও অবিবাহিত কিশোরীদের প্রায় সকলেই (৯৮ শতাংশ) ঋতুকালীন সময়ে একবার ব্যবহারযোগ্য প্যাড বা সাবানপানি দিয়ে ধুয়ে বহুবার ব্যবহার করা যায় এমন উপাদান ব্যবহার করে। তবে, ঋতুকালীন স্বাস্থ্যকর আচরণের প্রবণতা এখনো বেশ কম, বিবাহিত কিশোরীদের মধ্যে ৯ শতাংশ  এবং অবিবাহিত কিশোরীদের মধ্যে ১২ শতাংশ মাত্র। উল্লেখ্য, প্রতি চারজনের একজন কিশোরী (বিবাহিত এবং অবিবাহিত) ঋতুকালীন সময়ে কমপক্ষে একদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাওয়া বন্ধ রাখে।

উক্ত অনুষ্ঠানে জনাব জার্সেস সিধওয়া তার বক্তব্যে বলেন, জরিপের ফলাফলে দেখা যাচ্ছে যে কিশোরকিশোরীরা তাদের বয়ঃসন্ধি কালীন পরিবর্তন ও স্বাস্থ্য বিধি সম্পর্কে আরো তথ্য চায়। এখন আমাদের ভাবতে হবে এই কিশোরকিশোরীদের আমরা কতটা কার্যকরী ভাবে এইসব তথ্য দিতে পারি। আর এ জন্য প্রয়োজন বিভিন্ন সেক্টরের একীভূত পদক্ষেপ।

সমীক্ষা অনুসারে, প্রতি দশ জন অবিবাহিত কিশোর-কিশোরীর মধ্যে এক জন কৃশকায় বা কম ওজনের, এবং অন্য দশ ভাগের এক ভাগ স্থুলকায় বা বেশি ওজনের।  সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো যে, ৭৬-৮৫ শতাংশ কিশোর-কিশোরীরা খাদ্যের পাঁচটি গ্রূপ যেমন শাকসব্জী, স্টার্চ জাতীয় খাবার, দুগ্ধ, প্রোটিন এবং ফ্যাটযুক্ত খাবারের মধ্যে চারটি গ্রূপেরও বেশি খাবার গ্রহণ করে থাকে যা শরীর গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

বেশিরভাগ কিশোর-কিশোরী (৭০-৮০ শতাংশ) আয়রন সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করে। তবে, মাত্র এক চতুর্থাংশ কিশোর-কিশোরী ভিটামিন এ সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রী জনাব জাহিদ মালেক বলেন, বাংলাদেশ সরকার এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কিশোরকিশোরীদের স্বাস্থ্যকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে আসছে। এর অংশ হিসেবে মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে ন্যাশনাল স্ট্র্যাটেজি ফর এডোলেসেন্ট হেলথ ২০১৭৩০ তৈরি ও বাস্তবায়ন করছে। স্বাস্থ্য সেবায় বাংলাদেশ প্রভূত উন্নতি সাধন করলে ও বাল্যবিবাহ, কৈশোরে ঝুঁকিপূর্ণ গর্ভধারণের হার এখনো বেশি। স্বাস্থ্যখাতে অর্জিত উন্নয়ন সমুন্নত রাখতে বাল্যবিবাহ রোধকরা, কিশোরকিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য সম্পর্কিত পর্যাপ্ত তথ্যপ্রাপ্তি নিশ্চিত করা অত্যাবশ্যক, বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

জরিপের তথ্য অনুযায়ী, বিবাহিত কিশোরীদের মধ্যে ৯৭ শতাংশ বর্তমানে বিবাহিত এবং ৩ শতাংশ  কিশোরীর বিবাহ বিচ্ছেদ হয়েছে, স্বামীর থেকে পৃথক আছে অথবা বিধবা হয়েছে। এই কিশোরীদের ১৭ শতাংশ  বর্তমানে চার বছর বা অধিক সময় ধরে বিবাহিত। ৩০ শতাংশ কিশোরীর স্বামীর সাথে বয়সের পার্থক্য কমপক্ষে দশ বছর। জরিপে আরো দেখা যায়, সর্বোচ্চ সংখ্যক কিশোরী (৪৫শতাংশ) যাদের স্বামীর সাথে বয়সের পার্থক্য দশ বছর বা তার অধিক, অর্থিক ভাবে সর্বাধিক সুবিধাপ্রাপ্ত জনগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত।

জরিপে আরো দেখা যায়, একতৃতীয়াংশ (৩৪ শতাংশ) বিবাহিত কিশোরী এবং প্রায় একপঞ্চমাংশ (১৮ শতাংশ) অবিবাহিত কিশোরী মনে করে স্ত্রী কথা না শুনলে স্বামী তাকে শারীরিকভাবে আঘাতের অধিকার রাখে। ৮৮ শতাংশ অবিবাহিত কিশোরী পথে এবং ১৯ শতাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাওয়ার shomoy যৌন নিপীড়ণের শিকার হয়।

প্রতিনিধিত্ব শীল ৭২,৮০০ পরিবারকে জরিপের নমুনায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল যার মধ্যে ৬৭,০৯৩ পরিবারে সফল্ভাবে জরিপ পরিচালনা করা হয়। মোট ৪,৯২৬ জন বিবাহিত কিশোরী (৯৭ শতাংশ  সাড়া প্রদান হার), ,৮০০ অবিবাহিত কিশোরী (৯৪ শতাংশ সাড়া প্রদান হার), এবং ৫,৫২৩ অবিবাহিত কিশোরের (৮৫ শতাংশ  সাড়া প্রদান হার) এই জরিপের আওতায় সাক্ষাৎকার নেয়া হয়। 

জরিপের তথ্য সংগ্রহের মান নিশ্চিত করতে আইসিডিডিআর,বি ১৮ জন কর্মকর্তা এবং চারটি মান নিয়ন্ত্রণ টিমের মাধ্যমে তথ্যসংগ্রহ, পরিবার ও ব্যক্তির সাক্ষাৎকার গ্রহণ পর্যবেক্ষণ করে। মোবাইল এপের মাধ্যমে সাক্ষাৎকার গ্রহণের বিভিন্ন পর্যায়ে তারা নির্দেশনা ও প্রদান করে।

দেশব্যাপী এই জরিপ পরিচালনা করে ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ পপুলেশন রিসার্চ এন্ড ট্রেইনিং (নিপোর্ট) এবং টেকনিক্যাল সহায়তা প্রদান করে আইসিডিডিআর,বির রিসার্চ ফর ডিসিশন মেকার্স (আরডিএম) প্রকল্প এবং ইউনিভার্সিটি অফ নর্থ ক্যারোলিনার ডাটা ফর ইম্প্যাক্ট (ডিফরআই)। জরিপে অর্থায়ন করেছে ইউএসএআইডি, যুক্তরাজ্যের দাতা সংস্থা এফসিডিও এবং বাংলাদেশ সরকার।

Social Medias

More News on this Topic
01779911004