April 14, 2021, 1:46 am
Headlines:
রাশিয়ান বিশ্ববিদ্যালয় গুলির অনলাইন শিক্ষামূলক প্রদর্শনী ২১ এপ্রিল বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হবে মশার লার্ভার বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে: ঢাদসিক মেয়র  বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে ই-পোস্টার প্রকাশ সারা দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ লাখ ৩৭ হাজার ৩২৯ জনের ভ্যাকসিন গ্রহণ নিরবচ্ছিন্ন পানি সরবরাহে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরকে নির্দেশ স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর বিডা’র অনলাইন ওএসএস পোর্টালে যুক্ত হলো আরো ৫ টি নতুন সেবা আগামীকাল থেকে পবিত্র রমজান মাস গণনা শুরু ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি নিলেন মমতাজ ১৩ এপ্রিল কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন সরকার সব সময় আপনাদের পাশে রয়েছে : প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সকল প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার নির্দেশ বাংলা নববর্ষে তথ্যমন্ত্রীর শুভেচ্ছা পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর বাণী  পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির বাণী বাংলা নববর্ষ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর বাণী  বাংলা নববর্ষ উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির বাণী মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধকালে জেলেদের জন্য ৩১ হাজার মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ করোনা রোধে বিধিনিষেধ চলাকালে জরুরি প্রয়োজনে পুলিশের MOVEMENT PASS কোভিড-১৯ সংক্রমিত রোগীর ঢাকামুখী না হওয়ার পরামর্শ নওগাঁয় তিনটি উপজেলায় সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্টের উদ্বোধন করলেন খাদ্যমন্ত্রী

পটুয়াখালীর সচেতন মহলের অসচেতন কর্মকান্ড

The Bangladesh Beyond
  • Published Time Saturday, April 18, 2020,

সুনান বিন মাহাবুব, পটুয়াখালী

করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় পটুয়াখালীর মানুষ আজ গৃহবন্দি। প্রতিটি অলি গলি, ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা শহর আজ অঘোষিত লকডাউনের মধ্যে। এমন অবস্থায় পটুয়াখালীর সচেতন নাগরিকরা দেশের অন্যান্য জেলার করোনার পরিস্থির কথা শুনছে এবং দেখছে, কিন্তু নিজেরা সরকারি বিধিনিষেধ মানছে না। সকাল হলেই শহরের নিউমার্কেট, পুরানবাজার, বাধঘাটে কাঁচাবাজারে চলছে ঈদের আমেজে চলাফেরা। পটুয়াখালী শহরের সবুজবাগের বিভিন্ন অলিগলির চায়ের দোকানে এখনও চলছে আড্ডা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা পুরনো ডাক্তারি প্রেসক্রিপশন সাথে নিয়ে প্রশাসনকে বোকা বানানোর চেষ্টায় রাস্তায় বের হয়েছেন করোনা পরিস্থিতি দেখেতে।

পটুয়াখালীর গ্রামাঞ্চলে কেউ বা আবার রাতের আধারে খোলা মাঠে জমাচ্ছে তাস, জুয়ার আসর। দুঃখজনক হলেও এটাই সত্যি যে শহরের বোতলবুনিয়া, আউলিয়াপুর, লোহালীয়া অঞ্চলের এই অনাকাঙ্খিত ঘটনাগুলো ঘটছে বিত্তশালী শিক্ষিত মানুষের অসচেতনতার অভাবেই।
পটুয়াখালীর সচেতন মহলের প্রথম শ্রেণি থেকে তৃতীয় শ্রেণির মানুষ পর্যন্ত সবাই আতঙ্কে কিংবা করোনাভীতিতে থাকলেও নেই নিরাপত্বাজ্ঞান। অতি উৎসুক জনগন করোনায় সতকর্তা এবং সচেতনতার পরিবর্তে আক্রান্তদের দেখতে বের হচ্ছে। কিছু কিছু স্থানে একে অপরকে সচেতন করছে ৩০-৫০ জন স্থানীয় বাসিন্দা মিলে।

ইতিমধ্যে পটুয়াখালীর দুমকি উপজেলায় একজন করোনায় মৃত্যু এবং একজন আক্রান্তের ঘটনায় পটুয়াখালীর স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করলেও সচেতনতার পরিবর্তে লোকসমাগম সৃষ্টি করে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিচ্ছে।

কিছুদিন পূর্বে পটুয়াখালীর পশ্চিম সবুজবাগে শাফিয়া আক্তার (৩৪) নামে একজন প্যারালাইসড রোগী খুলনা থেকে রাত ৮ টায় অ্যাম্বুলেন্স যোগে নিজ বাসায় আসে। অ্যাম্বুলেন্স প্রবেশের সাথে সাথে স্থানীয় অর্ধশত লোক জড়ো হয়ে অ্যাম্বুলেন্স রোধ করে প্রশাসনকে খবর দেয়। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ওই এলাকায় লোক জড়ো ছিলো যাতে অ্যাম্বুলেন্সর রোগী বাসায় প্রবেশ করতে না পারে। পরবর্তীতে প্রশাসনের লোক এসে রোগীকে পর্যবেক্ষণ করে তার মধ্যে কোন করোনার উপসর্গ না পাওয়ায় সদর হাসপাতালের সাধারণ ওয়ার্ডে ভর্তি করিয়েছে।

এ ক্ষেত্রে অর্ধশত লোক তাদের নিরাপত্বার জন্য এক এলাকায় জড়ো হয়ে খুলনা ফেরত রোগীকে আটকে দিয়েছেন অথচ তারা ভাবেননি একটি এলাকায় এতগুলো মানুষ জড়ো হয়েছে এবং লোকসমাগমের কারণে করোনা নিজেদের মধ্যে ছাড়াচ্ছে। এমন ঘটনা পটুয়াখালী শহরের প্রথম লেন, কলাতলা হাউজিং এলাকা এবং পুরানবাজারেও লক্ষ করা গেছে।

ইতিমধ্যে পটুয়াখালীবাসী গুজবে বিশ্বাস করে ‘থানকুনিপাতায় করোনা চিকিৎসা’ এমনটা দাবি করেছে অথচ ঘরে বসে একটু হাপিয়ে উঠলেই বাইরে বের হচ্ছে করোনা পরিস্থিতিতে পুলিশ, প্রশাসনের কি ভূমিকা আছে তা দেখতে। সকাল হলেই শহরের সবুজবাগ মোড়ে লক্ষ করা যায় অযথা ঘোরাফেরা করছে কিছু উৎসুক মানুষ। তাদের ধারনা এই ভাইরাস পটুয়াখালীর মত শহরে আসতে পারবে না। অথচ ঢাকা-নারায়নগঞ্জ থেকে বহু মানুষের আগমন ঘটেছে পটুয়াখালী সদর ও দুমকি উপজেলায়।

এ ব্যাপারে পটুয়াখালী র‌্যাব-৮ কোম্পানী অধিনায়ক রইছ উদ্দিন জানান, পটুয়াখালী করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে জনসমাগম এড়ানো ও হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করার লক্ষে সরকার মুদি, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য ও ঔষধের দোকান ব্যতিত অন্যান্য সব দোকান পাট বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রদান করেছে।

লোকসমাগম এড়াতে পটুয়াখালী শহরের প্রতিটি স্থানে আমাদের চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। কোন এলাকায় যাতে অযথা কেউ আড্ডা দিতে না পারে সে ব্যাপারে আমাদের মাঠ পর্যায়ে সার্বক্ষণিক মনিটরিং চলছে। অযথা কেউ বাইরে বের হলে সক্রামক আইনে তাকে শাস্তি প্রদান করা হবে জানিয়েছেন তিনি।

Social Medias

More News on this Topic
01779911004